৪০০ বছরের পুরনো মন্দিরে মাঝরাতে ঘটে এমন সব ঘটনা

ঈশ্বর আছে না নেই ? এই বিষয়ে অনেকেই অনেক কথা বলে থাকেন ৷ তবে এই অনুভূতি একদম ব্যক্তিগত ৷ বিশ্বাসে মিলায় বস্তু তর্কে বহুদূর ৷ বিজ্ঞান ঈশ্বরের অস্থিত্বের ব্যাপারে সন্দেহ প্রকাশ করলেও ৷ বেশ এমন কিছু চমৎকার আছে যা দেখে বিজ্ঞানও অনেক সময়ে চমকে যায় ৷ ভারতে এমন কিছু মন্দির আছে যার ঐতিহাসিক গুরুত্ব আছে সেখানেও অনেক ঘটে যাওয়া বেশ কিছু রহস্য জনমানস তথা বৈজ্ঞানিকদেরও এক রহস্যের মধ্যে রেখেছে ৷ এমনই কিছু মন্দিরই আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু ৷ ছবি সংগৃহীত ৷

বিহারের বক্সারের এমনই এক মন্দির যা আজও বিজ্ঞানিদের কাছে রহস্যের সৃষ্টি করেছে ৷ রাজ রাজেশ্বরী ত্রিপুর মন্দির ৷

এখানে দেববিগ্রোহ পরস্পর পরস্পরের সঙ্গে কথাবার্তায় ব্যস্ত থাকেন ৷ বৈজ্ঞানিকেরা যখন খোঁজ নিয়েছিলেন তখন তাঁরাও এই ব্যাপারে অস্বীকার করেননি ৷ ছবি সংগৃহীত ৷

এই মন্দির ৪০০ বছরের পুরনো ৷ বিখ্যাত তান্ত্রিক ভবানি মিশ্র প্রায় ৪০০ বছর আগে এই মন্দির প্রতিষ্ঠা করেছেন ৷ সেইদিন থেকে আজ পর্যন্ত তাঁর পরিবারের সদস্যরা এই মন্দিরের পূজারি রূপে দেবতার নিত্য সেবা করে থাকেন ৷ তন্ত্র সাধনার মাধ্যমেই এখানে মায়ের প্রাণ প্রতিষ্ঠা করা হয়ে থাকে ৷ ছবি সংগৃহীত ৷

এই মন্দিরের প্রতি তান্ত্রিকদের বিশ্বাস অগাধ ৷ শোনা যায় এখানে কেউ না থাকলেও এখানে বেশ কিছু কণ্ঠস্বর শুনতে পাওয়া যায় ৷ রাজ রাজেশ্বরী ত্রিপুর সুন্দরী মন্দিরও মায়াবী পরিবেশ বেশ আশ্চর্য করেছে ৷ মাঝরাতে নাকি এখানে কথাবর্তার আওয়াজ শুনতে পাওয়া যায় ৷

Leave Your Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *